সন্তানের গলা কেটে খুন করে আত্মঘাতী হোমগার্ড!

অদিতি সরকার: পুরুলিয়ার বেলগুমা পুলিশ লাইনে স্পেশাল হোমগার্ডের রহস্যমৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য। পারিবারিক বিবাদের জেরে ছেলেকে মেরে আত্মঘাতী স্পেশাল হোমগার্ড, এমনটাই ধারণা প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের। কোয়ার্টার থেকে উদ্ধার হয়েছে আত্মসমর্পণকারী প্রাক্তন মাওবাদী হেমন্ত হেমব্রম ও তাঁর ৬ বছরের শিশুপুত্রের রক্তাক্ত দেহ। পুলিশ সূত্রে খবর, হেমন্ত হেমব্রমের বাড়ি আড়ষায়। ২০১২ সালে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণের পর, স্পেশাল হোমগার্ডের চাকরি পেয়েছিলেন তিনি। স্ত্রী-ছেলেকে নিয়ে থাকতেন বেলগুমা পুলিশ লাইনে। মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সোমবার সকালে পুরুলিয়া শহরের বেলগুমা পুলিশ লাইনে স্পেশাল হোমগার্ডের ৮ নম্বর কোয়ার্টার থেকে উদ্ধার হয় দুটি রক্তাক্ত দেহ। সূত্রের খবর, প্রাক্তন মাওবাদী ছিলেন হেমন্ত হেমব্রম। পরে রাজ্য সরকারের প্যাকেজ পাওয়ার আশায় জেলা পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছিলেন তিনি। এরপরই স্পেশাল হোমগার্ডের চাকরি পান। এদিন সকালে রুমের বিছানা থেকে শিশু ও তাঁর বাবা স্পেশাল হোমগার্ডের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য বেলগুমা পুলিশ লাইনে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ ইতিমধ্যেই।

সূত্রের খবর, নিহত ওই স্পেশ্যাল হোমগার্ডের স্ত্রীর সঙ্গে  ঝগড়াঝাঁটি লেগেই থাকত। এদিনও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ শুরু হয়। অভিযোগ, এরপর সোমজিৎ হেমব্রম নামে নিজের ছয় বছরের সন্তানের গলা কেটে খুন করেছেন হেমন্ত। পরে নিজের গলাতেও ছুরি বসিয়ে আত্মঘাতী তিনি। এমনটাই দাবি তাঁর নিকটদের।

close