5G বিতর্কের মধ্যেই পরিষেবা শুরু এয়ার ইন্ডিয়ার!

জোনাকি পণ্ডিত: 5G নিয়ে তোলপাড় আমেরিকার বিমানবন্দরগুলিতে। বুধবার থেকেই ওই দেশে 5G ব্যান্ড হওয়ার কথা ছিল। জার জেরে বহু বিমান সংস্থাই বিমান চালাতে রাজি নয়। এয়ার ইন্ডিয়াও ভারত-মার্কিন রুটের আটটি উড়ান বাতিল করেছি‌ল। তবে অবশেষে গিয়ে কাটল সেই জট। আমেরিকায় রওয়ানা হল বি৭৭৭। বোয়িং ক্লিয়ারেন্সের পরই শুরু হলো বিমান পরিষেবা।

 

মার্কিন বিমান ও কার্গো বিমান সংস্থাগুলির তরফ থেকে হুঁশিয়ারি দিয়ে জানানো হয়েছিল যে 5G ব্যান্ড হওয়ার কথা। একই ভাবে আপত্তি জানাতে দেখা গিয়েছিল ভারতের বিমানচালকদেরও। বহু উড়ান সংস্থাই জানায় যে তারা তাদের অপারেশন কমিয়ে দিতে চলেছে। ফলে ক্রমশই তৈরি হতে বিমান জট।

 

এয়ার ইন্ডিয়র তরফ থেকে ট্যুইট করে জানিয়ে দেয়, তারা আটটি উড়ান বাতিল করেছে। ফলে নাজেহাল অবস্থা যাত্রীদের।তবে অবশেষে মিটেছে সেই সমস্যা। এয়ার ইন্ডিয়ার তরফে এক বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, আমেরিকায় বি৭৭৭ উড়ান সংক্রান্ত বিষয়টির সমাধান হয়েছে। এবার অন্যান্য উড়ানগুলিও দ্রুত চালু করা হবে, যাতে আটকে থাকা যাত্রীরা গন্তব্যে পৌঁছতে পারেন।

এখন প্রশ্ন 5G পরিষেবা শুরু হওয়ার সঙ্গে বিমান চলাচলের সমস্যার কোথায়? আসলে মার্কিন বিমান পরিষেবা দপ্তর ‘ফেডেরাল অ্যাভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’ আশঙ্কা করছে, 5G পরিষেবা শুরু হলে বিমানে রেডিয়ো অল্টিমিটারের সমস্যা দেখা দেবে। ফলে ইঞ্জিনে বড়োসড়ো সমস্যা হবে। এমনকি সমস্যা হতে পারে বিমান অবতরণের সময়ও। তাই বিমান সংস্থাগুলির মতে, রানওয়ের মোটামুটি ২ মাইল এলাকা যদি 5G নাগালের বাইরে থাকে,তাহলেই আর কোনও সমস্যা নেই।

close