ববরু এক মিউজিশিয়ানের গল্প

১. ববরু প্রজেক্ট এর মধ্যে এমন কী রয়েছে যেটা আপনাকে আকর্ষিত করলো?

বববরু প্রজেক্টটি আমি প্রথম দিকে জাস্ট শুনেছিলাম ,আর আমি তো নতুনদের সাথে কাজ করতে পছন্দ করি সবসময়ই এনিটাইম যে বড় বড় কাজের সাথে ছোটকাজ তো তার জন্য ওকে করেছিলাম তারপরে যখন প্রত্যেকটা ব্যাপার শুনলাম এবং জানলাম কি প্রজেক্ট করছি তো আরও ইন্টারেস্টেড হলাম কারন আমার মনে হয় বোবরু আমরা সবাই।1-2% এখানে যারা আছে যারা কাজ করে,যারা কাউকে ধরে কাজ করে।বাকি যারা আছে তারা ম্যাক্সিমাম বোবরু,আমিও বোবরু।একটা টাইমে বোবরু ছিলাম বা এখন আছি। সেই জিনিস গুলো শুনে আরো আকর্ষিত হলাম পরবর্তীকালে এবং কাজ করার সময় আরো বেশি ভালো লাগলো।

২. সেটের মধ্যে ঘটে যাওয়া এমন কোনো মজার ঘটনা যেটা আপনি আপনি আমাদের পাঠককে জানাতে চান?

সেটের মধ্যে যে ঘটনাগুলো সেটা তোমরা কোনটা জানতে চাইছে জানিনা আমার বোবরু প্রজেক্ট এর মধ্যে নাকি এমনি কোন ঘটনা। এমনি কোনো ঘটনার মধ্যে প্রচুর মজার মজার ঘটনা আছে যেগুলো খুব মজার।আমার কাছে সেগুলো মজারও হতে পারে আবার কষ্টেরও হতে পারে।এখন সেগুলো মজা লাগে বাট আগে সেগুলো কষ্ট পেয়েছি যেমন বেশ কিছু ব্যাপারে আমাকে ড্রেস দেওয়া হয়নি,আবার অনেক সময় ডাউন করে মেকআপ দেওয়া হত।যাতে অন্য যারা খুব কাছের লোক তাদের যাতে প্রবলেম না হয় অথবা চুল স্ট্রেইট করা হতো ইস্ত্রী দিয়ে,তখন খুব কষ্ট পেতাম কেন এরকম করছে আমার সাথে?আমার মনে হত আমি হয়ত মিডিল ক্লাস ফ্যামিলি থেকে এসেছি,এমনকি আমি কারোর মারফত আসিনি।তখন কষ্ট পেতাম এখন মজা মনে হয়।এগুলো করে লোকের কি লাভ হয় জানি না।

স্পেশ্যালি মজার হচ্ছে আমি স্বপ্ন ছবি করতে গিয়ে সাইকেল চালাতে পারতাম না তো মিথ্যা কথা বলেছিলাম প্রজেক্ট পাওয়ার জন্য। বলেছিলাম আমি সাইকেল চালানো পারি হরদা কে। তারপর শুটিং এর আগের দিন আমাকে তিন চার ঘণ্টার মধ্যে সাইকেল চালাতে হয়েছিল।স্বপ্ন সিনেমার সেই গানটা এখনো দেখলে হাসি পায় আমার।এবং প্রচন্ড জোরে পড়ে গেছিলাম আমি,তখন বুম্বাদা আমাকে হেল্প করেছিল এবং বলেছিল কাঁদবি না কাঁদবি না।কারণ আমিতো পড়ে গেলেই কাঁদি।লজ্জা লাগে তার জন্য, ব্যথার জন্য নয়। সেগুলো দেখলে আমার মজার মনে হয়।

৩.চন্দ্রদ্বীপ গোস্বামী দীর্ঘদিন ধরে এই মিউজিক নিয়ে কাজ করছেন কেমন ছিল তার সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা ?

চন্দ্রদ্বীপের সাথে কাজ করার খুব ভালো অভিজ্ঞতা কারণ যেটুকুনি ওরা কাজ করছে আমার মনে হয়েছে ভেরি প্রফেশনাল অভিয়াসলি আমার মিউজিক ভিডিওটির কনসেপ্ট ভালো লেগেছে মিউজিক ভিডিও টা ভালো লেগেছে নো ডাউট খুব ভালো একটা মিউজিক এবং গানটাও ভালো।ও অনেকদিন ধরে কাজ করছে ওর কথাও শুনলাম।ও অনেকদিন ধরে স্ট্রাগল করছে।জানিনা এত সুন্দর কাজ করা পরেও এত স্ট্রাগল কেন করতে হয় আমি জানি না বাট ঠিক আছে ভালো কাজের ভালো ফল একদিন না একদিন ঠিকই পাওয়া যাবে।

৪. স্নেহা সৌম্যদীপ এর মতন নতুনদের সাথে প্রথমবার কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

সৌম্যদীপ প্রথমবার কাজ করছে তার আগে অন্য কাজ করেছে এবং খুব ভালো ভালো জায়গায় কাজ করেছে অন্য রকমের কাজ করে কিন্তু আমার মনে হয় নি যে প্রথমবার কাজ করছি আমার মনে হচ্ছে প্রফেশনাল অভিনেতাদের সাথে কাজ করছি।হ্যাঁ,ক্যামেরা এঙ্গেল হয়তো বুঝতে অসুবিধা হচ্ছিল ওর,তবে ও ভেরি মাচ কমফোর্টেবল বলে মনে হয়েছে আমার ইন ফ্রন্ট অফ ক্যামেরা।প্রথমবার কাজ করতে গেলে ক্যামেরা লোকে ভয় পায় কিন্তু ও সেটা একদমই পাচ্ছিল না আমাকে ভয় পাচ্ছিল হয়েছে আমার যেটুকু মনে হয়েছে।কিন্তু কাজ করতে ভালো লেগেছে আমার কারণ ওখানে যারা ছিল সবাই খুব ফ্যামিলিয়ার এবং কাজের ব্যাপারে অগ্রেসিভ ছিল কাজের ব্যাপারে।এটা আমার খুব ভালো লাগে কারণ আমি নিজেই কাজের ব্যাপারে ভীষণ ওদের মতন।আর কিছু বলার নেই তবে আড্ডাও ভালো হয়েছে কাজও ভালো হয়েছে।তবে সৌম্যদ্বীপের সাথে কাজ করে আমার খুব ভালো লেগেছে।

৫.কী মনে হয় আমাদের সমাজে ববরুর মতন ছেলেদের পরিণতি কি হয় ?

আমাদের সমাজে বোবরুর মতন ছেলে কেন মেয়েও বলতে পারি।বোবরু একটি কারেক্টর ঠিকই ওখানে ছেলে হিসেবে দেখানো হয়েছে কিন্তু আমার মনে হয় আমি নিজে মেয়ে হয়ে আমি বোবরু। বলতে পারেন সবাই সবাই সবাই সবাই

সবার পরিণতি কি হয় আমি জানিনা কিন্তু 5% কি কিছু % তারা হাল ছেড়ে দেয়। জীবন থেকে অথবা নিজের ক্যারিয়ার থেকে অন্যকে দিয়ে চলে যায় তাদের মধ্যেও যাদের সাথে কাজ করেছি তাদের মধ্যেও হয়তো অনেকেই অনেক কিছু করে নিজের লাইফে স্যাক্রিফাইস করেছে এবং করবে। আর কিছু % যাদের লাক সাথ দেয় এই প্রফেশনে তারাই অর্জন করতে পারবে এই প্রফেশনে। কারণ এখানে তো হেল্প খুব একটা পাওয়া যায়না।লাক সাথ দিলে অনেক কিছু করতে পারবে যেটা আমার ইমাজিনারির বাইরে।বাকিরা জানি না সত্যি জানি না।

৬.বর্তমানে চলচিত্র জগতের মানুষ মানেই রাজনৈতিক একটা সংযোগ চলেই আসে, কিন্তু মেঘনা হালদারকে সেই তালিকায় দেখা যাচ্ছে না|কেন বলুন তো ?

বর্তমানে চলচ্চিত্র জগতের মানুষ মানেই রাজনৈতিক একটা সংযোগ চলে আসে কিন্তু মেঘনা হালদার কে সেই তালিকায় রাখা যাচ্ছে না কেন? সেটা হচ্ছে যে প্রথম কথা আগেও যে তালে তাল মিলিয়ে চলতে পারিনা আমি যে কোন দলে যোগ দেব,তাদের তালে তাল মেলাতে পারবো না।আমি আমার নিজের প্রফেশনে মেলাতে পারিনা।আমি নিজের মতো চলি।দলে যোগ দিলে তাদের কথা মতো চলতে হবে। আমি টাকা কামাতে চাই কিন্তু আমি লোকের ক্ষতি করতে চাইনা তো সেটা কিভাবে হবে আমি জানিনা হয়তো কিছুটা হবে কিছুটা হবে না।হয়তো আমার দ্বারা সম্ভব নয় তাই আসছি হাসছি না।আমি বিশাল কিছু নই তাই MLA বা MP নই।

আমি ছোট কিছু তাই ছোট থাকতে চাই।হওয়ার সাথে বদলাতে পারি না তাই আমি দল বদলাতেও পারিনা।আর আমি রাজনীতি বুঝি না,আমার লাইফের রাজনীতি বুঝিনি তো এমনি রাজনীতি কি করে বুঝবো ?তাই যেটা বুঝিনি সেটা করবো না জীবনে।

৭.ববরুর মতন ছেলেরা সমাজের মূলস্রোতে পা না মিলিয়ে সমাজের অনেক কুকথা সহ্য করতে হয় এরকম ঘটনা আপনার সাথে কখনো হয়েছে ?

ববরুর মতন ছেলেদের সমাজের মূল স্রোতে পা না মিলিয়ে সমাজের অনেক কথা কুকথা সহ্য করতে হয় এরকম ঘটনা আমার সাথে আগেও হয়েছে আমি বলেছি এরকম আরো আরো আরো এখনো হয় এখনো হয় এত এত সিনিয়র আর্টিস্ট আমি এখনো হয় ।আমার কাছে প্রচুর বেস্ট অ্যাক্ট্রেস,বেস্ট সাপোটিং অ্যাক্ট্রেস অথবা আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে নামকরা নামকরা যারা ডিরেক্টর আছেন,নামকরা প্রোডিউসার আছেন,অনেক হিরো আছেন তারা বলেন,মেঘনা তুমি খুব ভালো এক্টরেস। বাট আমি সেই এওয়ার্ড গুলো আমি সত্যি কথা বলতে আমার বাড়ি থেকে ফেলে দিয়েছে কারণ সেই এওয়ার্ড এর কোনো দাম নেই এবং এই কথার কোন দাম নেই আমি যদি তেল না লাগাই এখন অব্দি এখন আমিও যদি এখন অব্দি প্রপারভাবে মেইনটেইন না করতে পারি সবকিছু তাহলে আমাকে লোকে ডাকবেন না,আমি জানি।আমি আমার মতন কাজ করি ঠিকই।অনেকে হয়তো আমাকে ভালো ভালো কাজ দিয়েছে অথবা করেছি আমি। তারপরেও আমার মনে হয়েছে এওয়ার্ড এর কোনো মানে নেই এই কথাগুলোর কোনো মানে নেই এবং সমাজের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারি তাহলে আমাদেরকে বোকা অথবা গামাণ্ডি অনেক কিছু নাম দেওয়া হয় সেই এওয়ার্ড গুলো আমার কাছে মনে হয় আমার কাছে রেখে দেওয়া দরকার এবং আমি যা আমি তাই।

close