এক বাড়িতে ১১টি পরিবারের ছটপুজো

অনিমেষ সরকার, চালসা : ছটপুজোর তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে ইতিমধ্যেই। অন্যবছরগুলোর মতো এইবছরেও একসঙ্গে ১১টি পরিবার ডুয়ার্সের চালসায় দীপালি শিংয়ের বাড়িতে উপোস করে পুজো করছে।

গৃহকর্ত্রী দীপালি শিংয়ের বাড়িতে বহুবছর ধরে এই ছটপুজো হয়ে আসছে। আশ্চর্যের এবং চমকপ্রদ বিষয় হলো দীর্ঘদিন ধরে ছটপুজোয় তার বাড়িতে একসঙ্গে ১৫-১৬টি বা তার অধিক পরিবার একসঙ্গে পুজো করছে। করোনা আবহেও সবরকমের নিয়মাবলী মেনে নিষ্ঠার সঙ্গে ছটব্রত পালন করছেন দোলা দাস, শিবানী ভৌমিক, টিয়া চক্রবর্তী, মনা রায়, শ্রদ্ধা গুহ, টুকু মিত্র, সরিতা ওঁরাও, দীপা গুরুং। প্রতিবছর বাড়ির অন্যসদস্যরা ছাড়াও বাইরে থেকে অনেকেই এই পরিবারে যোগ দিতে আসেন বা ঘাটে তাদের পুজো দেখতে আসেন। রাতজেগে আনন্দ হৈ-হুল্লোড়সহ ঠেকুয়া তৈরীতে প্রবীণ নবীনেরা একসঙ্গে হাত লাগান।

প্রসঙ্গত এইবছর করোনা আবহে আরও বেশ কিছু পরিবার যোগ দিতে পারেননি এই পুজোয়। চালসায় দীপালি শিংয়ের বাড়িতে ছটপুজোয় এতগুলো পরিবার একসাথে ব্রত পালন করার দরুণ অতিপ‍রিচিত এই পরিবার ছটপুজোয়। গতকাল খান্নাপুজো গিয়েছে একসঙ্গে খান্নাপুজো করে কাচের চুড়ি পরেছেন তারা। এইবছর ৭টি ঢাকি, ৪৮টি কুলো এবং ৫ জন দন্ডী কাটছেন ঠাকুরের কাছে মানত করার জন্য।

গৃহকর্তা ভরত শিং জানান যে তিনি আশা করছেন আগামী বছর যারা এইবছর একসাথে যোগ দিতে পারেননি তাদের সবাইকে আবার একসাথে পাওয়া যাবে। তবে এইবছর সমস্ত নিয়ম মেনেই পুজো করা হচ্ছে।

close