২৯ বছর বয়সেই টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায়

জোনাকি পণ্ডিত: ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজের মাঝপথেই কুইন্টন ডি কক নিলেন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। মাত্র ২৯ বছর বয়সেই টেস্ট ক্রিকেটকে ‘ আলবিদা’ বললেন প্রোটিয়া উইকেটকিপার-ব্যাটার। তিনি জানান পরিবারের সঙ্গে আরও বেশি করে সময় কাটানোর জন্যই এমন সিদ্ধান্ত তাঁর। এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১১৩ রানে হারিয়ে ভারত তিন ম্যাচে টেস্ট সিরিজে ১-০ এগিয়ে রয়েছে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট হারের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বোর্ড বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেয়, ডি কক আর খেলবেন না লাল বলের ক্রিকেট।

ডি কক জানিয়েছেন, “এমন নয় যে, খুব সহজেই এই সিদ্ধান্ত আমি নিয়েছি। ভবিষ্যত নিয়ে অনেক ভাবনা-চিন্তার পরেই এই সিদ্ধান্তে আসা। এই মুহূর্তে আমার জীবনে সবার ওপরে আমার স্ত্রী সাশা। ও মা হতে চলেছে। আমাদের প্রথম সন্তান আসছে পৃথিবীতে। এখন আমি আমার পরিবারের পাশে থাকতে চাই। আমার কাছে পরিবার সবার আগে। আমার এখন সময় লাগবে তাঁদের সঙ্গে থাকার জন্য। জীবনের নতুন অধ্যায়ের জন্য আমি রোমাঞ্চিত। আমি টেস্ট ক্রিকেট সবসময় উপভোগ করেছি। দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে ভালবাসি। ওঠানামা উপভোগ করেছি। তবে এখন এমন কিছু ঘটছে যা আমার কাছে আরও ভালবাসার।”

 

প্রসঙ্গত, ডি কক ২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পোর্ট এলিজাবেথে টেস্ট ম্যাচ খেলেন। ৫৪টি টেস্ট খেলে করেছেন ৩৩০০ রান। তাঁর খেলার ঝুড়িতে রয়েছে হাফ ডজন সেঞ্চুরি ও ২২টি হাফ সেঞ্চুরি। ডি ককের গড় ৩৮.৮২। একইসঙ্গে তিনি উইকেটকিপার হিসাবে ২৩২ বার আউট করানোর অন্যতম কারিগর। এর মধ্যে রয়েছে ২২১টি ক্যাচ ও ১১টি স্টাম্প। পাশপাশি ডি কক চারটি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার নেতৃত্বভারও দক্ষতার সঙ্গে সামলেছেন।

close