দিল্লিতে নেতাজির মূর্তি, জাতীয় ছুটির দাবি মমতার

জোনাকি পণ্ডিত: ইন্ডিয়া গেটে স্থাপিত হতে চলেছে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর মূর্তি। গোটা দেশ জুড়ে এই নিয়ে শোরগোল পড়েছে। গত শুক্রবার, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা করেছেন, নেতাজির মতো বিপ্লবীর কাছে ভারতের “ঋণস্বীকারের প্রতীক” হিসাবে ইন্ডিয়া গেটে দেশের স্বাধীনতার মুক্তিযোদ্ধার একটি বিশাল মূর্তি স্থাপন করা হবে। রবিবার সন্ধ্যে ৬টা নাগাদ সেই হলোগ্রাম মূর্তির উদ্বোধন হবে। এদিকে রবিবার সকালে ট্যুইট করে দেশের প্রধানমন্ত্রী জানান, নেতাজির জন্মদিবসের শুভেচ্ছা। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২৩ জানুয়ারিকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণার দাবি তোলেন।

ট্যুইট করে মোদি লেখেন, ”প্রত্যেক দেশবাসীকে পরাক্রম দিবসের শুভকামনা। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মজয়ন্তীতে আমার শ্রদ্ধার্ঘ্য। প্রতিটি দেশবাসী নেতাজির অবদানের জন্য গর্বিত।” এরই পাশপাশি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ট্যুইটে লিখেছেন, ”দেশনায়ক নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫ তম জন্মদিবস। তিনি ছিলেন দেশ তথা বিশ্ব নায়ক। দেশের স্বাধীনতা অর্জনে তাঁর ভূমিকা অনস্বীকার্য। আমরা ফের কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি, নেতাজির জন্মদিনকে জাতীয় ছুটি ঘোষণা করা হোক, যাতে গোটা দেশ সাড়ম্বরে দেশনায়ক দিবস উদযাপন করতে পারে।”

 

 

সূত্রের খবর, যতদিন না পাথরের মূর্তি নির্মাণের কাজ শেষ হয় ততদিন পর্যন্ত ওই একই স্থানে সুভাষ চন্দ্র বসুর একটি হলোগ্রাম মূর্তি থাকবে। আজ, ২৩ শে, জানুয়ারি সুভাষ চন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকী। এই বিশেষ দিনেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ওই হলোগ্রাম মূর্তিটি উন্মোচন করবেন। নেতাজির এই হলোগ্রাম মূর্তিটি ২৮ ফুট লম্বা ও ৬ ফুট চওড়া। রবিবার সন্ধ্যার এই বিশেষ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ২০১৯, ২০২০, ২০২১ এবং ২০২২ সালের ‘সুভাষচন্দ্র বসু আপদা প্রবন্ধন পুরস্কার’ প্রদান করবেন। অনুষ্ঠানটিতে মোট সাতটি পুরস্কার প্রদান করা হবে।

close