সক্রিয় রোগীর সংখ্যা কমতে স্বস্তি ফিরল দেশে!

জোনাকি পণ্ডিত: অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস! দেশের করোনা গ্রাফ নিম্নমুখী। সেইসাথে কমল সক্রিয় রোগীর সংখ্যা। বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ১১ হাজার ৪৮১ জন। যা ৫৩৭ দিনে সবচেয়ে কম।

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ২৮৩ জন।যা মঙ্গলবারের তুলনায় কিছুটা বেশি। একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩৭ জন। করোনায় সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজার ৯৪৯ জন। গত বছরের মার্চের পর যা রেকর্ড। সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ১১ হাজার ৪৮১ জন। যা গত ৫৩৭ দিনে সর্বনিম্ন।

 

এদিকে, পাঞ্জাবের মুক্তসারের নবোদয় বিদ্যালয়ে করোনার হানা। আক্রান্ত ১৪ জন পড়ুয়া। তাদের মধ্যে ১২ জন অষ্টম শ্রেণির এবং বাকি ২ জন নবম শ্রেণিতে পড়ে। দিনকয়েক ধরে জ্বর, সর্দি-সহ করোনার একাধিক উপসর্গ লক্ষ্য করা যায়। তারপরই পড়ুয়াদের কোভিড টেস্ট করা হয়। রিপোর্ট পজিটিভ হওয়ার পরই তাদের আইসোলেশনে রেখে চিকিত্‍সা শুরু করা হয়। পড়ুয়ারা করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়ায় স্বাভাবিকভাবেই উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা। আপাতত ২ সপ্তাহের জন্য বন্ধ স্কুল।

 

প্রায় দেড় বছর পড়ে দেশে করোনায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যা সর্বনিম্ন হওয়ায় স্বস্তি মিলেছে ঠিকই। তবে এখনই লাগামছাড়া আচরণ না করাই ভালো এমনটাই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ, এই মুহূর্তে সামান্য উদাসীনতা বড়সড় বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাই কোভিডবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন তাঁরা। রাস্তায় বেরলেই পরতে হবে মাস্ক। ব্যবহার করতে হবে স্যানিটাইজার। দূরত্ববিধিও মেনে চলা ফেরার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

 

 

close