বিলুপ্ত গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলা

অভিমান্য পাল (নদিয়া) : বর্তমানে আধুনিক প্রযুক্তির স্পর্শে অস্তিত্ব হারাতে চলেছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলাগুলি । এমন একটা সময় গেছে যখন শিশুরা খেলায় মত্ত ছিল , আর যুবক ও যুবতীরা পড়াশোনার পাশাপাশি নানা রকম খেলায় মেতে থাকতে পছন্দ করত। খেলা ছিল নানান প্রকার । খেলার শুরু বাড়ির উঠোন থেকে রাস্তার ধারে কিংবা আনাচে-কানাচে আবার মাঠের কম পরিসরেই খেলা জমতো ।

কিন্তু আমরা এমন একটা সময়ের সম্মুখীন যেখানে মাঠ-বিল-ঝিল হারিয়ে বসেছি । আধুনিক সভ্যতার ছোঁয়া পেয়ে মহাকালের ইতিহাসকে ভুলে হাতে তুলে নিয়েছি ইলেকট্রনিক্স গেম , ল্যাপটপ , মোবাইল সহ বিভিন্ন যন্ত্র । এই যন্ত্র শিশুদের মন ও মেধার বিকাশকে দমন করে ।

গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া খেলাগুলির মধ্যে পুতুলের বিয়ে , হা-ডু-ডু , কাবাডি , ঘুড়ি খেলা , দাঁড়িয়াবান্ধা , ডাংগুলি , গোল্লাছুট , কুস্তি , গোশত চুরি , কিতকিত, চোর-পুলিশ ,হাড়িভাঙা , ইচিংবিচিং , ওপেন টু বায়োস্কোপ , কড়ি খেলা , সাপ খেলা , ভলি খেলা , টোপাভাতি , নোনতা, নৌকা বাইচ , রুমাল চুরি , লুডো , ফুলটোক্কা , বাঘবন্দি , গুলি খেলা , মোড়গ লড়াই , লাট্টু খেলা , এক্কা দোক্কা , সাতপাতা , ধাপ্পা-হুস , ষোলগুটি , রসকস , চারগুটি , চেয়ার সেটিং-এর মতো হাজার রকমের খেলা আজ প্রায় বিলুপ্ত । খেলা হল বিনোদনমূলক , স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক ও প্রতিভা বিকাশের অন্যতম।

close