দলে করোনার হানায় ফুটবল ম্যাচে অনিশ্চয়তা!

জোনাকি পণ্ডিত: করোনার থাবা এবার আইএসএলে। শনিবার মুখোমুখি হওয়ার কথা এটিকে মোহনবাগান ও বেঙ্গালুরু এফসির। কিন্তু ২ দলেরই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন একজন করে সাপোর্ট স্টাফ। এই পরিস্থিতিতে আগামীকাল ম্যাচ আদৌ হবে কিনা তা নিয়ে শুক্রবার একটি বৈঠক হওয়ার কথা। এরপরই জানা যাবে আদৌ ম্যাচ করা সম্ভব কি না। উল্লেখ্য, গতকাল কোনো দলই প্র্যাকটিসে নামেনি। একই সঙ্গে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে বেঙ্গালুরুর শুক্রবারের সাংবাদিক বৈঠকও। নিয়ম ২ দলেরই ১৫ জনের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ হতে হবে ম্যাচে নামার আগে।

 

ক্রমেই বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসের দাপট।আক্রান্ত হয়েছিলেন ওড়িশা এফসি-র এক ফুটবলার। এর আগে আক্রান্ত হলেন এটিকে মোহনবাগান ও এফসি গোয়ার ফুটবলাররা। এটিকে মোহনবাগানের ম্যাচও স্থগিত হয়ে যায়। এবার বায়ো-সিকিওর বাবলে থাকা সত্ত্বেও আইএসএল-এর তৃতীয় দল হিসেবে ওড়িশার অন্দরে ঢুকে পড়ল করোনা। তবে নতুন করে আর কোনও ফুটবলার যাতে করোনা আক্রান্ত না হন, তার জন্য নেওয়া হচ্ছে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা।

 

প্রসঙ্গত, এর আগে করোনার কারণে আই লিগ স্থগিত রাখা হয়েছিল। কিন্তু আইএসএল বায়ো বাবলের সুস্থভাবেই হচ্ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত করোনা হানা বসলো আইএসএলে। এর আগে এটিকে মোহনবাগান দলের রয় কৃষ্ণ ও সন্দেশ ঝিঙ্ঘান করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। জার জেরে আইএসএল-এর সিইও মার্টিন বেন সব ক্লাবকে জানিয়ে দিয়েছেন, বারবার ম্যাচ স্থগিত রাখা সম্ভব হবে না। ১৫ জন ফুটবলার সুস্থ থাকলেই হবে ম্যাচ।তবে যদি তার কম ফুটবলার সুস্থ থাকে তাহলে হয়তো ম্যাচ স্থগিত রাখার চেষ্টা করা হবে। তবে সেটা যদি একান্ত সম্ভব না হয়, তাহলে যে দলের ফুটবলাররা করোনা আক্রান্ত, তাদের বিপক্ষ দলকে সেই ম্যাচে ৩-০ গোলে জয়ী দেখানো হবে।

close