ঘূর্ণিঝড় ফণী ঘুরতে চলেছে রাজ্যের দিকে-Bengal95

মধুমিতা জানা : ইতিমধ্যেই ঘূর্ণিঝড় ফণীর গতিপথ নিয়ে ধন্দ অনেকটাই কেটেছে। এই সপ্তাহের শেষে রাজ্যের উপকূলেই চলে আসতে পারে এই ঘূর্ণিঝড়, ফলে গরম থেকে স্বস্তি দিতে গিয়ে রাজ্যে বড়োসড়ো বিপদ ডেকেও  আনতে পারে ।গত সপ্তাহের মাঝামাঝি থেকেই আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের ধন্দে রেখে দিয়েছিল বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া এই ঘূর্ণিঝড়।


 প্রথমে মনে করা হচ্ছিল, এটি তামিলনাড়ু উপকূলে আছড়ে পড়বে। এ রকমই পূর্বাভাস দিয়েছিল কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। কিন্তু তার ২৪ ঘণ্টা পরেই সেই পূর্বাভাস থেকে সরে গিয়ে আবহাওয়া দফতর জানায় ‘তামিলনাড়ু উপকূলের কাছাকাছি চলে আসবে  ঘূর্ণিঝড়টি ।
তবে অবশেষে  ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাব্য গতিপথের ব্যাপারে একটা ধারণা পাওয়া গিয়েছে। আবহাওয়া দফতরও সর্বশেষ আপডেটে জানিয়েছে, আগামী ১ মে পর্যন্ত এটি তামিলনাড়ু-অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলের দিকে অগ্রসর হলেও, তার পরে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে ঘুরবে। অর্থাৎ তার অভিমুখ পুরোপুরি চলে আসবে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের দিকে।
তবে ঘূর্ণিঝড়টি কবে কোথায় আছড়ে পড়বে সে ব্যাপারে কিছু বলেনি আবহাওয়া দফতর। তবে এই ব্যাপারে ইঙ্গিত দিয়েছে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা। সংস্থার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা জানাচ্ছেন, “উত্তর ওড়িশা থেকে পশ্চিমবঙ্গ উপকূলের মধ্যে দিয়ে এই ঝড়টি স্থলভাগে ঢুকতে পারে।


আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছে,  ক্রমশ শক্তি বাড়িয়ে চরম তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হবে। তবে উপকূলের কাছাকাছি পৌঁছোনোর সময় কিছুটা শক্তি কমাতেও পারে সে।
এর  প্রভাবে বৃহস্পতিবার থেকে রাজ্যের আবহাওয়া পরিবর্তন হতে পারে। তবে তার আগে বুধবার সন্ধ্যায়ও কলকাতায় স্বস্তির কালবৈশাখী বয়ে যেতেও  পারে। কিন্তু সেই স্বস্তি ক্রমশই অস্বস্তির কারণ হয়ে উঠতে পারে। কারণ দিন যত এগোবে, তত বাড়বে বৃষ্টি এবং হাওয়ার গতিবেগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

close